ব্রাউজের ক্যাটাগরি

বিশেষ দিবস

বিশেষ দিবস

বিশ্ব যক্ষ্মা দিবস

সেই ১৯৯৫ সাল থেকে প্রতি মাসের ২৪ তারিখে বিশ্ব যক্ষ্মা দিবস পালন করা হয়ে আসছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার উদ্যোগে প্রতি বছরের এই দিনে সারা বিশ্ব ব্যাপী যক্ষ্মা রোগ সম্পর্কে সবাইকে সচেতন করা হয়ে থাকে।

আজ এই বিশ্ব যক্ষ্মা দিবস –এ চলুন আমরাও জেনে নেই যক্ষ্মা রোগ কীভাবে প্রতিরোধ এবং নিয়ন্ত্রণ করা যায়- পড়তে থাকুন

বিশেষ দিবস

বিশ্ব পানি দিবস

আজ ২২শে মার্চ। প্রতিবছর এই দিনে বিশ্ব পানি দিবস পালন করা হয়ে থাকে। ১৯৯২ সালে রিও ডি জেনেরিওতে ইউনাইটেড নেশনেরর কনফারেন্সে প্রথম এই দিবস পালনের প্রস্তাব উত্থাপন করা হয়। ১৯৯৩ সালে প্রথম বিশ্বব্যাপী এই দিবস পালন করা হয়।

পানি এমন একটি পদার্থ যেটা ছাড়া আমাদের জীবন চলবে না। কিন্তু অনেকেই পানির সঠিক ব্যবহার করতে পারেন না। সঠিক এবং পরিমাণমত পানি ব্যবহার করলে বিভিন্ন রোগব্যাধি থেকে রক্ষা পাওয়া সম্ভব।
চলুন আজ বিশ্ব পানি দিবস –এ পানি কখন কীভাবে কতটুকু পান করবেন সেটা সম্বন্ধে বিস্তারিত জেনে নেই- পড়তে থাকুন

ডায়াবেটিস, বিশেষ দিবস

ডায়াবেটিস সচেতনতা দিবস

আজ ২৮ ফেব্রুয়ারি। আমাদের দেশে এই দিনে ডায়াবেটিস সচেতনতা দিবস পালন করা হয়। বলতেই পারেন, ডায়াবেটিস! এতো এখন প্রায় সবারই হয়ে থাকে। খুব বেশি ক্ষতি তো করেনা। ডায়াবেটিস শরীরে নিয়ে মানুষ সব কিছুইতো করে বেরাচ্ছে। তাহলে এর সম্বন্ধে এতো জানার কী আছে?

আছে! অনেক কিছুই জানার আছে। শহরাঞ্চলে এখন এমন পরিবার খুব কমই খুঁজে পাওয়া যায় যেখানে কেউ না কেউ ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হন নি। বর্তমানে পৃথিবীতে প্রায় ৩৭১ মিলিয়ন মানুষ ডায়াবেটিসে আক্রান্ত এবং আরো ২৮০ মিলিয়ন ডায়াবেটিস হওয়ার প্রবল ঝুঁকিতে রয়েছে। যদিও অনেক মানুষেরই এই রোগ হয় তবুও সরাসরি মৃত্যুঝুঁকি না থাকায় এ রোগটি নিয়ে মানুষের তেমন কোন মাথা ব্যথা নেই।

ডায়াবেটিস সম্পর্কে এখনো অনেক ভুল কথা প্রচলিত আছে। ডায়াবেটিস সম্বন্ধে সঠিক তথ্য জানতে আজ ডায়াবেটিস সচেতনতা দিবস -এ একটু সতর্ক হয়ে নিচের গুরুত্বপূর্ণ তথ্যগুলো পড়ি- পড়তে থাকুন

বিশেষ দিবস, সামাজিক সচেতনতা, সাম্প্রতিক

শিশুদের জীবন রক্ষা করুন বিশ্ব শিশু ক্যান্সার দিবসে

“বিশ্বব্যাপী ক্যান্সারে আক্রান্ত শিশুদের আরও উন্নত চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে হবে।” এই স্লোগান নিয়ে শুরু হয়েছে আজ বিশ্ব শিশু ক্যান্সার দিবস। কেউ ইচ্ছা করুক আর নাই বা করুক শিশুদের এরোগ হয়েই চলেছে। এটি এখন আর দুরারোগ্য নেই। এর ও আছে চিকিৎসা কিন্তু সেটা সবার দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতেই এই বিশ্ব শিশু ক্যান্সার দিবসের উৎপত্তি। পড়তে থাকুন

বিশেষ দিবস, সামাজিক সচেতনতা

ক্যান্সারকে দিব অ্যান্সার এই বিশ্ব ক্যান্সার দিবসে

ক্যান্সার! নামটা শুললে আমরা প্রায় সবাই একটু হলেও ভীত হয়ে যাই। কারো দেহে এই রোগটি বাসা বাঁধলে ভাবি, তার বুঝি আর রক্ষা নেই। ধীরে ধীরে মৃত্যুর পথে এগিয়ে যাওয়াই যেন এর শেষ পরিণতি। তবে এখন অনেক ক্যান্সারে আক্রান্ত রোগী সময়মত সঠিক চিকিৎসা গ্রহণের মাধ্যমে সুস্থ হয়ে উঠছে। ক্যান্সারকে জয় করে সুস্থ হয়ে ফিরে আসছে স্বাভাবিক জীবনে। আর তাই  “আমরা পারবো, আমি পারবো” এই শ্লোগান নিয়ে আজ পালিত হচ্ছে বিশ্ব ক্যান্সার দিবস ২০১৬।

হঠাৎ করে শরীর আর স্বাভাবিক নিয়মে কাজ করতে পারছে না? অল্পতেই হাঁপিয়ে উঠছেন? ব্যায়াম করছেন না, খাচ্ছেন নিয়মিত তবুও ওজন কমে যাচ্ছে? এগুলো হলে ডাক্তার দেখান। হয়তোবা আপনিও এই ভয়াবহ ক্যান্সারের শিকার হয়েছেন। চলুন আজ বিশ্ব ক্যান্সার দিবসে এরোগ সম্বন্ধে কিছুটা বিস্তারিত জেনে নেই-

পড়তে থাকুন

বিশেষ দিবস, স্বাস্থ্য সমস্যা

বিশ্ব কুষ্ঠ দিবস

আজ বিশ্ব কুষ্ঠ দিবস । প্রতি বছরের জানুয়ারি মাসের শেষ রবিবার সারা বিশ্বব্যাপী এই দিবসটি পালন করা হয়ে থাকে। ভারতের প্রখ্যাত নেতা মহাত্মা গান্ধীর স্মৃতিরক্ষা অনুষ্ঠানে প্রথম এই দিবসটি পালনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। বিশ্বের কিছু পুরাতন রোগের মধ্যে কুষ্ঠ রোগও একটি। এটি হ্যানসেন ডিজিজ নামেও পরিচিত।

ছোট বেলা থেকে টেলিভিশনে বা রেডিওতে অনেক অনেক বার হয়ত এই রোগের ব্যাপারে শুনেছেন। কিন্তু কখনো কি জানার চেষ্টা করেছেন কেন এই রোগ হয়? কীভাবে এই রোগ থেকে নিস্তার পেতে পারি? যদি না করে থাকেন তবে চলুন একটু জেনে নেই- পড়তে থাকুন

গবেষণা, জীবনযাত্রা, ফিটনেস, বিশেষ দিবস, সামাজিক সচেতনতা, সাম্প্রতিক, স্বাস্থ্য সমস্যা

বিশ্ব এইডস দিবস ২০১৫

প্রতি বছরের ১লা ডিসেম্বর সারা বিশ্বব্যাপী এইডসের প্রাদুর্ভাব সম্পর্কে সচেতনতা করতে এবং যারা এইডসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন তাদের জন্য শোক পালন করা হয়। বিশ্ব এইডস দিবস বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ৮টি গ্লোবাল পাবলিক হেলথ ক্যাম্পেইনগুলোর মধ্যে একটি।

২০১৩ সালের সমীক্ষা অনুযায়ী এখন পর্যন্ত প্রায় ৩৬ মিলিয়ন মানুষ এইডসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে এবং প্রায় ৩৫.৩ মিলিয়ন বর্তমানে এইডসে আক্রান্ত। প্রতি বছর প্রায় ২ মিলিয়ন মানুষ এইডসে আক্রান্ত হয়ে মারা যায় যার মধ্যে ২৭০০০০ শিশু।

পড়তে থাকুন