ওজন নিয়ন্ত্রণ, ক্যান্সার, খাদ্য ও পুষ্টি, ফিটনেস

শীতের সবজি বরবটি

শীতের এই সময় বাজারে পাওয়া যাচ্ছে তরতাজা বরবটি। আগে বরবটি ছিলো মৌসুমী সবজি। কিন্তু এখন বারো মাসই বরবটি পাওয়া যায়। বরবটি ভাজি, ভর্তা অথবা তরকারি করে খাওয়া হয়। এর রয়েছে চমৎকার পুষ্টিমান। শুধু পুষ্টিমানেই ভরপুর নয় বরবটি। এটি স্বাস্থ্যের জন্যও খুব উপকারি।

প্রাপ্ত উপাদানঃ

প্রতি ১০০ গ্রাম সবুজ বা বেগুনি রঙের বরবটি থেকে পাওয়া যায় ৪৮ ক্যালরি শক্তি। যাতে নেই কোন ফ্যাট এবং ক্ষতিকর কোলেস্টেরল। শর্করার পরিমান ১০ গ্রাম এবং প্রোটিন ২.৬ গ্রাম। এছাড়াও রয়েছে ভিটামিন এ, ভিটামিন সি, ভিটামিন ডি, ভিটামিন কে, ক্যালসিয়াম, আয়রন, ম্যাগনেসিয়াম, ফসফরাস সহ নানারকম ভিটামিন ও মিনারেল।

উপকারিতা:

প্রচুর পুষ্টিমান সমৃদ্ধ বরবটির রয়েছে দারুণ স্বাস্থ্য উপকারিতা। এর পুষ্টিমান সুস্বাস্থ্যের জন্য চমৎকার কাজ করে।

ক্যান্সারের সম্ভাবনা কমিয়ে দেয়বরবটিতে রয়েছে ফ্ল্যাভোনয়েড নামে এ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। এর দুটি উপাদান kaempferol এবং
quercetin। অস্ট্রেলিয়ার ডেকিন বিশ্ববিদ্যালয়ের এক গবেষণায় দেখা যায় এই দুই উপাদান ক্যান্সার কোষ বৃদ্ধিরোধ করতে চমৎকার কাজ করে।

অস্থিসন্ধির ব্যথা কমায়আপনার সালাদের বাটিতে প্রতিদিন ২৫০ মিলিগ্রাম কাঁচা বরবটি মিশিয়ে নেন। এতে আপনি আপনার প্রতিদিনের ভিটামিন ‘কে’-এর ১৯ শতাংশ মেটাতে পারেন। ভিটামিন কে আপনার অস্টিওআর্থারাইটিস সমস্যা থেকে অস্থিসন্ধির যত্ন দেবে। আর রক্ত জমাট বাঁধতে ভিটামিন কে- এর ভূমিকার কথাতো আপনি জানেনই।

হার্টের সুরক্ষায়: বরবটিতে রয়েছে প্রচুর উপকারি আঁশ, যা শরীরের এলডিএল (ক্ষতিকর) কলেস্টেরলের পরিমান কমিয়ে দেয়। ফলে হার্টের সুরক্ষা নিশ্চিত হয়। এছাড়াও এটি উচ্চ রক্তচাপ, বুক জ্বালাপোড়া প্রভৃতি সমস্যা দূর করতে ভূমিকা রাখে।

হাড়ের ঘনত্ব বৃদ্ধি করেবরবটিতে রয়েছে সিলিকন। যা হাড়ের ঘনত্ব বৃদ্ধি করে। হাড় শক্ত করতে প্রয়োজনীয় ক্যালিসিয়ামও পাওয়া যায় বরবটির বীজে। আর রজস্বলা নারীদের স্বাস্থ্য উপকারে সিলিকন ও ক্যালসিয়াম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।

 আয়রনের ঘাটতি পূরণ করেভিটামিন সি খুব গুরুত্বপূর্ণ এ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। এটি শরীরের জন্য প্রয়োজনীয় আয়রন পরিশোষণে ভূমিকা রাখে। সালাদে কাঁচা বরবটি খেলে তা থেকে প্রচুর ভিটামিন সি পাওয়া যায়। আর বরবটিতেও রয়েছে যথেষ্ট পরিমান আয়রন। যা আপনার শরীরের আয়রনের ঘাটতি পূরণ করতে পারবে।

 শরীরের চর্বি কমাতে সাহায্য করে: বরবটিতে রয়েছে প্রচুর এ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। এ্যন্টিঅক্সিডেন্ট শরীর থেকে দূষিত যৌগগুলোকে বের করে দেয়। ফলে সহজে চর্বি জমতে দেয় না। এ ছাড়া কম ক্যালরি যুক্ত খাদ্য ও ফ্যাট-কলেস্টেরল না থাকায় এটি পেট ভরে খাওয়া যায়। এতে ক্ষুধাভাব কম হয়।

বাংলাদেশে শীতকালে প্রচুর পরিমাণে নানান জাতের সবজি পাওয়া যায় যা আপনি পাবেন টাটকা এবং দামে খুব সস্তা। শীতকালে অধিক উৎপাদনের ফলে সবজির বাজারমূল্য কমে যায়। যার কারণে প্রতি বছর অনেক সবজি নষ্ট হয়। এসব কাঁচাপণ্য পচনশীল হওয়ার ফলে বেশিদিন সংরক্ষণ বা গুদামজাত করা সম্ভব হয় না। সাধারণত খোলা পরিবেশে বিভিন্ন প্রকারের অনুজীব সবজি ভেতরের এনজাইমের কারণে সবজি দ্রুত পচে নষ্ট হয়। এটি বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের ক্ষেত্রে একটি মারাত্মক সমস্যা। তাই যদি শীতকালীন সবজি প্রক্রিয়াজাতকরণ ও সংরক্ষণ করা হয় তাহলে এই অপচয় অনেকটা রোধ করা সম্ভব।

এই আঁশজাতীয় খাবার শাক সবজি গ্রহণে শরীর মুটিয়ে যাওয়ার থেকে সুধু  রক্ষা করে না আরও শরীরকে সবল করে তোলে। তাই আজই বাড়িতে আনুন অধিক পুষ্টি গুণ সমৃদ্ধ শীতের সবজি। তবে একটা কথা মনে রাখা জরুরী কেনার আগে “ফরমালিন” মুক্ত কিনা তা যাচাই করার চেষ্টা করুন। সুস্থ ও সুন্দর থাকুন।

 

 

Comments

comments

পূর্ববর্তী পোস্ট পরবর্তী পোস্ট

আপনি হয়ত এগুলো পছন্দ করতে পারেন